Breaking News

মাত্র ১৬৯ টাকায় করোনা ভ্যাকসিন

প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস মহামারি থেকে বাঁচতে বিশ্বব্যাপী বিজ্ঞানীদের লক্ষ্য এখন প্রতিষেধক টিকা তৈরি করা। এর মধ্যে ভারত তিনটি প্রতিষেধক নিয়ে কাজ করছে। দুটি তাদের নিজেদের তৈরি এবং আরেকটি ব্রিটেনের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় এবং অ্যাস্ট্রাজেনেকার যৌথ উদ্যোগে তৈরি।

সম্প্রতি ঢাকা সফরে এসে ভারতের পররাষ্ট্র সচিব হর্ষবর্ধন শ্রিংলা বলেছেন, তার দেশে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন তৈরি হলে বাংলাদেশ অগ্রাধিকার পাবে।

কিন্তু ভারতে উৎপাদিত অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিন বাংলাদেশ কোন উপায় পাবে সেটা ভারতের সাথে ভ্যাকসিন প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানের চুক্তির ওপর নির্ভর করবে বলে জানান স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় কমিটির সভাপতি আ ফ ম রুহুল হক।

তিনি বলেন, ‘ভারতসহ বিভিন্ন দেশকে অক্সফোর্ড এই টিকা উৎপাদনের অনুমোদন দিয়েছে। অক্সফোর্ড যদি ভারতকে অনুমোদন দেয় বিক্রি করতে, তাহলে তারা বাংলাদেশের কাছে বিক্রি করবে। এটা নির্ভর করছে অক্সফোর্ডের ওই কোম্পানি এবং ভারতের মধ্যে কী দেন-দরবার হয়েছে, সেটার ওপর।’

১৩০ কোটির দেশ। সব দিক খতিয়ে দেখেই ভ্যাকসিন আসার আগে শুরু হয়েছে বিলিবন্টন নিয়ে ভারত সরকারের প্রস্তুতি। সূত্রের খবর ভ্যাকসিনের জন্য ৫০ হাজার কোটি টাকা ভর্তুকি হিসেবে সরিয়ে রাখছে সরকার।

এর ফলে একবার ভ্যাকসিন প্রস্তুত হলে ১৩০ কোটি ভারতবাসীর ভ্যাকসিন নিতে খরচ হবে ভারতীয় মুদ্রায় আনুমানিক ১৪৭ রুপি বা ১৬৯ টাকা।

ব্লুমবার্গ ও কুইন্ট সূত্রে খবর, এই অর্থমূল্য ধার্য করা হয়েছে এই অর্থবর্ষ অর্থাৎ ৩১ মার্চ পর্যন্ত। ৬-৭ ডলার অর্থাৎ ১৪৭ রুপি বা ১৬৯ টাকা খরচ করে মোট দু’টি ডোজ নেওয়া যাবে ভ্যাকসিনের।

মঙ্গলবারই প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদি বলেন, দেশের বিজ্ঞানীরা রাতদিন কাজ করছেন ভ্যাকসিন তৈরির জন্য। পাশাপাশি উৎসবের মরশুমে দেশবাসীকে কোভিড বিধি মেনে চলার ব্যাপারেও সতর্ক করেন তিনি।

About admin

Check Also

করো’না আক্রান্ত রোগীর সেবা করেও সুস্থ থাকবেন যেভাবে

করো’নাভাই’রাস আমাদের স্বাভাবিক জীবনযাত্রাকে যন্ত্রণাদায়ক করে তুলেছে। সংক্রমণের ভয়ে প্রত্যেকেই সবসময় স্ট্রেসের মধ্যে থাকছেন। গবেষকরাও …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *