ভূমধ্যসাগরে ৩৬ বাংলাদেশি নি’হ’তের প্রধান আ’সামি সিলেটে গ্রে’ফতার

বিদেশে পাঠানোর নামে ৩৬ বাংলাদেশি নাগরিককে ভূমধ্যসাগরে ট্রলার ডু’বিতে নি’হ’ত’মা’ম’লা’র প্রধান আ’সামি রফিকুল ইসলামকে গ্রে’ফ’তারকরেছে র‌্যাব-৯।

সিলেটের বিশ্বনাথ থেকে সোমবার বিকালে তাকে গ্রে’ফ’তার করা হয়। র‌্যাব-৯ এর মুখপাত্র এএসপি ওবাইন গ্রে’ফ’তারের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, আসামি রফিকুল ইসলাম মানবপাচার সংক্রান্ত ৬ মা’ম’লার আসামি।

আসামিকে র‌্যাবের হেফাজতে রয়েছে। ২০১৯ সালের ১১ মে ট্রলার ভূমধ্যসাগরে ট্রলার ডুবির ট্র্যাজেডিতে প্রাণ হারিয়েছিলেন ৩৬ বাংলাদেশি।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়,দেশের মানবপাচার চক্রের অন্যতম শী’র্ষ আ’সামি রফিকুলের বি’রু’দ্ধে মা’ম’লা করায় বা’দীকে অ’স্ত্র দিয়ে মা’ম’লা’য় ফাঁ’সানোর চেষ্টা ও করেছিল মা’নব’পা’চার চ’ক্র।

এ ব্যাপারে রফিকুলসহ তার ৫ স’হযোগীর বি’রু’দ্ধে বি’শ্বনাথ থানায় মা’ম’লাও হয়েছিল। ২০১৯ সালের ২৮ নভেম্বর দায়ের করা মা’ম’লা নং ২১।

উপজেলার নওধার মাঝপাড়া গ্রামের ইলিয়াস আলীর পুত্র রেজাউল ইসলাম রাজু মা’ম’লাটি দায়ের করেছিলেন।

এতে মা’ম’লার প্রধান আসামী উপজেলার কাঠালীপাড়া গ্রামের মৃ’ত চমক আলীর পুত্র রফিকুল ইসলামকে প্রধান আসামি ও দক্ষিণ সুরমা উপজেলার তেতলী চেরাগী গ্রামের সৈয়দ আলীর পুত্র শাহিন আহমদকে আসামি করা হয়।

এই মা’ম’লায় গ্রে’ফ’তার করা হয় মা’নব’পা’চার চ’ক্রের মূল হো’তা রফিকুলের স’হযোগী রাজনগর গ্রামের মৃ’ত আতর আলীর পুত্র আবদুল কাদির, রামপাশা গ্রামের মৃ’ত আবদুল মানিকের পুত্র আলী হায়দার মহুরী, বিশ্বনাথ নতুন বাজার এলাকার বাসিন্দা আসু মিয়ার পুত্র আবুল কালামকে।

এছাড়াও ২০১৯ সালের ১৬ মে মা’নব পা’চার প্র’তিরোধ দমন আইনে মা’ম’লা হয় রফিকুলের বি’রু’দ্ধে। মা’ম’লা নং ৮।
jugantor

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *