দম্পতির কাছে ১২ হাজার টাকা দাবি হিজড়াদের, কোলে নিয়ে নাচানোর সময় শিশুর মৃত্যু!

দেড় মাস আগে হাসপাতালে চন্দন খিলার ও তনিমা দম্পতির যমজ পুত্রসন্তান হয়। খবর পেয়ে গত শুক্রবার একদল হিজড়া তাদের বাড়িতে এসে ১২ হাজার টাকা ‘বকশিশ’ দাবি করে।

পরে দর কষাকষি করে দুহাজার টাকা দিয়ে রফার পর হিজড়ারা একটি শিশুকে কোলে নিয়ে নাচ শুরু করে। ঘুরে ঘুরে নাচের সময়ই হঠাৎ শিশুটি মারা যায়।

শুক্রবার ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের ঝাড়গ্রাম জেলার বিনপুর থানার শিলদায়।

এ ঘটনায় মৃত শিশুর বাবা থানায় অভিযোগ দেয়ার পর তিন হিজড়াকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

আনন্দবাজার পত্রিকার এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শিলদার বাসিন্দা পেশায় গাড়িচালক চন্দন খিলারের স্ত্রী তনিমা গত ৪ ডিসেম্বর ঝাড়গ্রাম জেলা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে যমজ পুত্রসন্তান প্রসব করেন।

বড় ছেলের নাম রাখা হয় সুমন, ছোটর শোভন। তবে জন্মের পরই সুমনের হৃদযন্ত্রে সমস্যা ধরা পড়ে।

চন্দনের অভিযোগ, শুক্রবার সকালে তিনজন হিজড়া জোড়া পুত্রসন্তানের জন্য ১২ হাজার টাকা দাবি করেন। তারা এমন অশালীন আচরণ করছিলেন যে বাধ্য হয়ে টাকা দিতে রাজি হই। দুহাজার টাকা নগদ দিয়ে বাকি টাকা পরে দেব বলেছিলাম।’

চন্দন বলেন, ‘সুমনকে কোলে নিয়ে একজন হিজড়া এক পাক ঘুরতেই ওর শ্বাসকষ্ট শুরু হয়। প্রথমে শিলদা প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্র, সেখান থেকে ঝাড়গ্রাম সুপার স্পেশালিটিতে আনা হয়। তবু বাঁচানো গেল না।’

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *