Breaking News

ইসলামকে কটাক্ষ: এবার সৌদি আরবে ভারতীয় নারী অধ্যাপক বহিষ্কার !

ভারতীয় কিছু রাজনীতিক, শিক্ষিত ব্যক্তি, বিশেষ রাজনৈতিক মতাদর্শে বিশ্বাসী সমর্থক কিছু বিদ্বেষী,

সাম্প্রদায়িক দোষে দুষ্ট, হলুদ মিডিয়ার প্ররোচনায় পা দিয়ে দেশের সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের প্রতি ক্রমাগত হিংসা, ঘৃণা ছড়িয়ে যাচ্ছে।

এর বিষাক্ত বিষ দেশের গন্ডি ছাড়িয়ে বিদেশের মাটিতেও আছড়ে পড়ছে। এই ন্যক্কারজনক কাজের জন্য ইতিমধ্যে কানাডা, নিউজিল্যান্ডে দুই প্রবাসী ভারতীয় শাস্তি পেয়েছে।

এছাড়াও সংযুক্ত আরব আমিরাত, কুয়েত থেকেও বেশ কয়েকজন ভারতীয় যুবক চাকরিচ্যুত হয়েছেন। আরব বিশ্বের বহু দেশ ইতিমধ্যে এই ইসলাম বিদ্বেষ নিয়ে সোচ্চার হয়ে উঠেছে। ইসলাম ভীতি নিয়ে তারা জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ করছেন বলে জানিয়ে দিয়েছেন।

এবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে ইসলাম বিরোধী পোস্ট করে পদ খোয়ালেন সৌদি আরবের একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত ভারতীয় অধ্যাপক নীরজ বেদি। তাকে বরখাস্ত করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কতৃপক্ষ। খবর : ট্রেন্ডস ম্যাপ।

অধ্যাপক নীরজ বেদি সৌদি আরবের জাজান বিশ্ববিদ্যালয়ের কমিউনিটি মেডিসিনের অধ্যাপক ছিলেন। তার বেতন ছিল ৩৫,০০০ রিয়াল অর্থাৎ প্রতি মাসে ভারতীয় সাত লাখ টাকা। খবর : ওবিএন এই তথ্য নিশ্চিত করেছে জাজান বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

মঙ্গলবার তাদের টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে টুইট করে জানানো হয়, বিশ্ববিদ্যালয়ের কিছু সদস্যর অভিযোগ রয়েছে, নীরজ বেদি আপত্তিজনক পোস্ট এবং ইসলামফোবিক টুইট করছেন। বিষয়টা আমাদেরও নজরে এসেছে।

তাই তাকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।ইসলাম ধর্মকে আঘাত ও মুসলমানদের বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িক আচরণের জন্য তাকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

About admin

Check Also

মুসলমানদের আজানে শুধু শব্দ দূষণই হয়না বরং মানুষের অসুবিধাও হয়

ভারতের উত্তর প্রদেশে শব্দ দূষণের কারণ হিসেবে আজান, অখন্ড রামায়ন, কীর্তন, কাওয়ালি প্রভৃতিকে দায়ি করেছে। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *