আসল ওসির কাছে ন’কল ওসির চাঁ’দা দাবি

মির্জাপুর থানার ওসি (তদন্ত) মো. মোশারফ হোসেন বলেছেন, আমার নাম ব্যবহার করে বিভিন্ন লোকজনকে ফোন করে চাঁদার টাকা দাবি করছে একটি চ’ক্র’। তিনি বলেন, চ’ক্রটি আমাকেও ফোন দিয়ে বলেছে আমি মির্জাপুর থানার ওসি (তদন্ত) মো. মোশারফ হোসেন বলছি।

তোমার নামে অভি’যোগ রয়েছে। মা’মলা ও অভি’যোগ থেকে বাঁচতে হলে এখনই টাকা পাঠাও। চ’ক্রটি যে নম্বর দিয়ে ফোন করে চাঁ’দা দাবি করেছে তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহার করে তাদের গ্রেফ’তারের চেষ্টা চলছে।

মঙ্গলবার (৫ নভেম্বর) মির্জাপুর থানা পু’লিশ সূত্র জানায়, প্রতা’রণার শি’কার হয়েছেন মির্জাপুর থানার বর্তমান ওসি (তদন্ত) মো. মোশারফ হোসেন, বাংলাদেশ জাতীয় পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান ও গোড়াই ক্যাডেট কলেজ এলাকার বাসিন্দা খন্দকার বিপ্লব মাহমুদ উজ্জল, লতিফপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. জাকির হোসেন এবং তরফপুর এলাকার বাসিন্দা মো. নাছির উদ্দিন।

ওসি মোশারফ হোসেন, খন্দকার বিপ্লব মাহমুদ উজ্জল এবং মো. নাছির উদ্দিন অভিযোগ করেন, সোমবার বিকেলের পর থেকে প্র’তারক চ’ক্র ‘০১৭৫৫-২৯৬৭৩৯’ নম্বর মোবাইলে তাদের আলাদা আলাদা ভাবে ফোন করে বলেন, আমি মির্জাপুর থা’নার ও’সি (তদন্ত) মো. মোশারফ হোসেন বলছি। তোমাদের নামে গু’রুতর অভি’যোগ রয়েছে। অ’ভিযোগ থেকে বাঁচতে হলে এসপি ও ডিআইজিকে ম্যানেজ করতে হবে। তাদের ১০ মিনিটের মধ্যে টাকা পাঠাতে হবে। আমি পারসোনাল রকেট মোবাইল নম্বর দিলাম। এখনই এক লাখ করে টাকা পাঠাও। এ ঘটনা অন্য কাউকে জানালে অবস্থা ভালো হবে না।

এ ব্যাপারে প্রতা’রক চ’ক্রের দেয়া ‘০১৭৫৫-২৯৬৭৩৯’ মোবাইল নম্বরে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলে ফোন বন্ধ থাকায় তাদের সঙ্গে কথা বলা সম্ভব হয়নি। এদিকে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, প্র’তারক চ’ক্রটি দীর্ঘদিন ধরে মির্জাপুরে প্রতারণার ফাঁদ পেতে এভাবে চাঁদা দাবি করে আসছে। এর আগে মির্জাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা, সংসদ সদস্য, সংসদ সদস্যের একান্ত সহকারী, কয়েকজন শিক্ষক এবং কয়েকজন ইউপি চেয়ারম্যানকে ফোন করে একই ভাবে চাঁ’দা দাবি করেছে বলে অ’ভিযোগ রয়েছে।

somoynews

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *