কাঁ’টা জড়ানো র’ড দিয়ে ভারতীয়দের ওপর হা’মলা চালিয়েছিল চীন!

সোমবার সন্ধ্যাবেলা পূর্ব লাদাখে চীন সেনার সঙ্গে মু’খো’মু’খি সংঘ’র্ষ হয় ভারতীয় বাহিনীর। মঙ্গলবারই ভারতীয় সেনাবাহিনী জানিয়েছিল, গালওয়ানে এই সং’ঘ’র্ষে ২০ জন জওয়ান নি’হ’ত হয়েছেন। এখন জানা গেছে,

আরো চারজনের অব’স্থা আ’শঙ্কা’জ’নক। তবে ভারতীয় সৈন্যরাও আচড় কে’টে’ছে বিপক্ষেও। সূত্রে খবর, অন্তত ৪৫ জন চীনা সেনা মা’রা গেছে সং’ঘ’র্ষে। যদিও চীন স্বীকার করেনি।

কিন্তু কেন এমন ভ’য়’ঙ্কর সংঘ’র্ষ শুরু হল হঠাৎ? ভারতের‌ এক সেনা অফিসার জানিয়েছেন সংঘ’র্ষের আসল কারণ। চীনের একটি ঘাঁটি নিয়েই বচসা শুরু হয় দু’‌পক্ষের। গালওয়ান নদীর দক্ষিণ তীরে একটি ঘাঁ’টি করে চী’ন সেনা’বাহি’নী অবস্থান শুরু করে। ওই অংশটি ‘‌বাফার জোন’‌ বা ‘‌নো ম্যানস ল্যান্ড’‌ এর অন্তর্ভুক্ত। অর্থাৎ ভারত বা চীন কারো ভূখণ্ডেই পড়ে না। ভারতীয় সেনাসদস্যরা ঘাঁটি সরাতে বলে। আপত্তি জানায় চীন সেনা। সেই নিয়ে লড়াই বাঁধে।

ভারতীয় মিডিয়ার খবরে বলা হয়, এর পরই চীন সেনা হা’মলা চালায়। গালোয়ান উপত্যকায় এখনো হিমাঙ্কের নিচে তাপমাত্রা। এই অবস্থায় ভারতীয় সেনাদের নদীতে ফেলে দেয়।

তীব্র ঠান্ডায় মা’রা যান বহু সেনা সদস্য। পরে নদীতে তাদের লা’শ ভেসে ওঠে। এখানেই থামেনি প্রতিপক্ষ। পাথর, র’ড নিয়ে আ’ক্রম’ণ করে। র’ডে আবার প্যাচা”নো ছিল কাঁ’টা।

ভারতীয় মিডিয়ার খবর পাল্টা জবাব দিয়েছে ভার’তীয় সে’নাস’দ্যরাও। অত উচ্চতায় অক্সিজেনের এমনিতেই অভাব থাকে। এই অবস্থায় হাতাহাতি করলে মৃ’ত্যু ‘পর্যন্ত হতে পারে। তাই হয়েছে দু’‌প’ক্ষের সেনার।

লাদাখে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা ঘিরে দুই দেশের মধ্যে পারস্পরিক দোষা’রো’প চলছিলই। সীমান্তের দুই পারে নিজেদের দিকে ভারত–চীন দু’‌জনেই সেনা মোতায়েন বাড়িয়েছিল। তাবলে এত হ’তা’হত!‌

ভারতীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় অবশ্য এখনো বি’বৃ’তি দিয়ে কারণ জানায়নি। চীন বারবার দাবি করেছে, ভা’রতীয় সেনা সদস্যই নিয়ন্ত্রণ রেখা পেরিয়ে চীন ভূখণ্ডে ঢু’কে আ’ক্র’ম’ণ চালিয়েছে। ভারত এই অ’ভি’যো”গ উড়ি’য়ে ‘দিয়েছে। জানিয়েছে, ‘‌চীনই এক’তরফা’ সীমান্তে স্থিতাবস্থা ন’ষ্ট করেছে।’

rtnbd

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *